জানেন কফি নিয়ে কি সাইকলজিকাল মিথ আছে?

0
1532

নিজস্ব প্রতিবেদন ১৭.১০.২০২০:

বহুসংখ্যক বাঙালির অভ্যাস সকালে উঠে চা খাওয়া।কিন্তু বেশ কিছু বাঙ্গালি,বিশেষত যাদের বয়স কুড়ি থেকে ৩৫ তাদের অনেকের নিয়ম সকালে উঠে কফি খাওয়া।কফি তে রয়েছে ক্যাফেন যা শরীরে এনার্জি আনে। যদিও এখন ঝাঁ চকচকে ক্যাফে তে নানা রকমের কফি পাওয়া যায় যেমন মোচা, ক্যাফেচিনো ভারী ভারী নাম তবু ব্ল্যাক কফির কদর আলাদা। শুধু সকালে না এমনকি টানা একঘেয়ে বসে কাজ করতে করতে ক্লান্তি কাটানোর জন্যে কাজের ফাঁকে এক কাপ ব্ল্যাক কফি খাওয়া যেন রুটিন হয়ে গেছে।

যদিও কফি তে রয়েছে বেশ কিছু গুন যেমন-

স্মৃতি শক্তি বাড়ায়

ওজন কমায়

যৌবন ধরে রাখতে সাহায্য করে,

কিন্তু অতিরিক্ত বেশি পরিমাণে সেবন করলে হতে পারে শারীরিক ক্ষতি।

) সাইকলজিকাল মিথ

কফি খাওয়া অভ্যাস হয়ে গেলে অনেকে মনে করেন যে এটা এনার্জি ড্রিংক হিসাবে কাজ করে।আর এই অভ্যাস  একবার তৈরি হয়ে গেলে কিছুতেই পিছু ছাড়ে না।

আপনার মনে হচ্ছে আপনি এনার্জি পাচ্ছেন কফির জন্য। আদতে কিন্তু তা নয়। ক্যাফিন শুধু কয়েক মুহূর্তের জন্য কিছু রাসায়নিক পরিবর্তন করে এই যা। মাঝে মধ্যে দু’-এক কাপ চা পান করেও দেখতে পারেন।

২) পেটের সমস্যা যদি দেখেন মাঝে মধ্যেই পেট গুড়গুড় আর খাবার হজম করতে বেগ পেতে হচ্ছে, চোখ বন্ধ করে কফিকে দায়ী করুন। কারণ কফির ল্যাক্সেটিভ প্রভাবেই এটা হচ্ছে।

কী করতে হবে বুঝতেই পারছেন নিশ্চয়ই। নিজে কফি পান নিয়ন্ত্রণ করুন।

৩) উত্তেজনা বা অস্থিরতা কফি পান করলেই যে আপনি সর্বদা এনার্জিতে টগবগ করে নাচবেন তা নয় কিন্তু। অনেক সময় কফি অ্যাড্রিনালিন হরমোন নিঃসৃত করে আপনাকে উত্তেজিত বা অস্থির করে তুলতে পারে।

আপনার মাথা ঘোরা বা গা বমিবমি বা হাত-পা কাঁপা এই সব লক্ষণ দেখা দিলে বুঝতে হবে, এ বার থামার সময় এসেছে।

৪) ঘুমের সমস্যা অনেকেই রাত জেগে কাজ করার জন্য বা লেখাপড়া করার জন্য রাত্রে কফি পান করেন। বেশ, তাঁরা করুন। কিন্তু আপনি যদি ঘুমোতে যাওয়ার আগে কফি পান করেন, তা হলে কিন্তু ঘুম আসতে দেরি হবে।

মাঝরাতে ঘুম ভেঙে যাওয়া বা অনিদ্রা রোগও দেখা দিতে পারে। যদি একান্তই মনটা কফি কফি করে, তাহলে সেটা ঘুমোতে যাওয়ার অন্তত তিন চার ঘণ্টা আগে পান করবেন।

৫) দ্রুত হৃদস্পন্দন ও উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা যে কোনও রকমের স্টিমুল্যান্ট আপনি বেশি মাত্রায় নিলে যা হবে কফির ক্ষেত্রেও তাই হয়!

এটি আপনাকে এনার্জি দেবে, জাগিয়ে রাখবে কিন্তু তার পাশাপাশি রক্তচাপ আর হৃদস্পন্দনও বাড়িয়ে দেবে। অতিমাত্রায় কফি তাই অনেক সময় হাইপারটেনশন এবং কার্ডিও ভাস্কুলার সমস্যারও অন্যতম কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই কফি পান করলেও সেটা যেন সীমার মধ্যে থাকে।

Loading...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here