লকডাউন কাকে বলে, জেনে নিন…..

0
15

লকডাউনের আক্ষরিক অর্থ, জরুরী পরিস্থিতিতে মানুষকের গতিবিধি বন্ধ করে দেওয়া। সতর্কতামূলক লকডাউন এবং এমার্জেন্সি লকডাউন। কলকাতাসহ একাধিক শহরে যে লকডাউন জারি হচ্ছে, তা সতর্কতামূলক লকডাউন। জনগণের স্বার্থেই প্রশাসন চাইছে যাতে অপ্রয়োজনে কেউ ঘরের বাইরে পা না রাখেন। এই লকডাউন আতঙ্কের নয়, স্বস্তির। লকডাউনের আওতায় পড়বেনা কোনও জরুরি পরিষেবা। খাবার-ওষুধ, জ্বালানি মিলবে অন্য সময়ের মতোই। হাসপাতাল, অ্যাম্বুল্যান্স , জরুরি পুর পরিষেবাও লকডাউনের আওতায় আসবে না।

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী হাসপাতাল, বিমানবন্দর, রেল স্টেশন, বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত পরিবহণলকডাউনের আওতায় পড়বে না। খাদ্য ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্য বহনকারী গাড়িগুলিকেও ছাড় দেওয়া হবে। আদালত, সংশোধনাগার, স্বাস্থ্য পরিষেবা, পুলিস, আধাসেনা, বিদ্যুত্, জল, দমকল, জরুরি পরিষেবা, ব্যাঙ্ক, ATM, সবজি, ফল, মাথ-মাংস, দুধ, পাউরুটি আওতার বাইরে থাকবে। পেট্রোল পাম্প, রান্নার গ্যাস, ওষুধের দোকান ও সংবাদমাধ্যমকেও শাটডাউনের আওতায় থাকবে না। ৭ জনের বেশি মানুষের জমায়েত নিষিদ্ধ হল।

Loading...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here