৩১ বছর পর একদিনের সিরিজে হোয়াইটওয়াশ ইন্ডিয়ার

0
98

নিজস্ব সাংবাদদাতা(সায়ন্তনী বড়াল), ১১/২/২০২০

কেএল রাহুলের লড়াকু সেঞ্চুরি, চাহলের ভেলকি স্বত্বেও একদিনের সিরিজে হোয়াইটওয়াশ আটকাতে পারল না বিরাট কোহলির দল। টিম ইন্ডিয়াকে মাটিতে নামিয়ে আনল কিউইরা। বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালের পর থেকে একদিনের ক্রিকেটে কিউইদের এখনও হারাতে পারেনি টিম ইন্ডিয়া। যদিও ভারত অধিনায়ক বলেছিলেন, এবছর প্রতিটি টি-টোয়েন্টি আর টেস্ট ম্যাচকে গুরুত্ব দিচ্ছেন তারা। মুখে যতই বলুন না কেন তবু হোয়াইটওয়াশের কালি না লাগানোই লক্ষ্য ছিল ভারতীয় শিবিরের। কিন্তু তা হল না। টি-টোয়েন্টি সিরিজে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা ওয়ানডে তে সুদে-আসলে তুলে নিল কিউইরা।

আরও পড়ুন…কোর্টে ফিরতে চার মাসে ফ্যাট থেকে ফিট এই ভারতীয় টেনিস সুন্দরী

মাউন্ট মাউনগানুইতে শেষ একদিনের ম্যাচেও ৫ উইকেটে হারল কোহলি অ্যান্ড কোম্পানি। ৩১ বছর পর একদিনের সিরিজে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা টিম ইন্ডিয়ার।ভারতকে হোটাইট ওয়াশ করার টার্গেট নিয়েই ব্য়াট করতে নামে দুই কিউই ওপেনার। মার্টিন গাপটিল এবং হেনরি নিকোলসের ১০৬ রানের ওপেনিং জুটিই ব্ল্যাক ক্যাপসদের জয়ের ভিত গড়ে দেয়।

গাপটিল ৬৬, নিকোলস ৮০ রান করেন। এরপর চাহল আর জাদেজার ধাক্কায় পর পর উইকেট হারায় নিউ জিল্যান্ড। বিধ্বংসী মেজাজে থাকা রস টেলর এদিন করেন মাত্র ১২। তবে টম লাথাম (৩২*)এবং কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম (৫৪*) জুটি নিউ জিল্যান্ডকে জয় এনে দেয়। তিন উইকেট নেন যুজবেন্দ্র চাহল।

হ্যামিলটনের পর অকল্যান্ড- পর পর দুটো একদিনের ম্যাচ হেরে তিন ম্যাচের একদিনের সিরিজ আগেই হাতছাড়া হয়েছিল কোহলিদের। মঙ্গলবার তবু সান্তনার জয়ের খোঁজে ছিল টিম ইন্ডিয়া। টস জিতে অবশ্য প্রথমে ভারতকে ব্যাট করতে পাঠান কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। শেষ ম্যাচেও ব্যর্থ মায়াঙ্ক-পৃথ্বি ওপেনিং জুটি। ব্যর্থ বিরাট কোহলিও। অধিনায়কের ব্যাটে রান নেই। কেএল রাহুলের সেঞ্চুরি (১১২), শ্রেয়স আইয়ারের ৬২ আর মনীশ পাণ্ডের ৪২ রানে ভর করে নিউ জিল্যান্ডের বিরুদ্ধে শেষ
একদিনের ম্যাচে ৭ উইকেটে ২৯৬ রান তোলে ভারত। কিউই পেসার হামেশ বেনেট ৪টি উইকেট নেন।

Loading...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here