শ্যুটিংয়ের জায়গা নয় JNU,দীপিকা পাডুকোনকে কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের…

0
69

নিজস্ব সংবাদদাতা, ১০/০১/২০২০

দিল্লির JNU ক্যাম্পাসে শখানেক দুষ্কৃতী রবিবার ঢুকে পড়ুয়াদের উপরে হামলা চালায়। মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয় জেএনইউ ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষের। তারপরই ক্ষোভে ফেটে পরে গোটা দেশ।মঙ্গলবার জেএনইউ-তে গিয়ে ঐশীদের পাশে দাঁড়ান দীপিকা পাডুকোন।এবং শুক্রবার অর্থাৎ আজ মুক্তি পেতে চলেছে দীপিকার নতুন ছবি ‘ছপক’। ইতিমধ্যেই তাঁর ছবি বয়কটের ডাক দিয়েছে গেরুয়া শিবির। বুধবার দীপিকার জেএনইউ-সফর নিয়ে কটাক্ষ মন্তব্য করলেন দিলীপ ঘোষ। তাঁর কথায়,”আমি জানি না কেন গিয়েছিলেন, ওটা শ্যুটিংয়ের জায়গা নয়। যেতে আপত্তি নেই। কেন যাচ্ছেন সেটা জানতে হবে। ওনারা লোককে বিভ্রান্ত করবেন। সে কারণে সমাজে প্রতিক্রিয়া হবে, তা ঠিক নয়।”
ধবার জেএনইউ ক্যাম্পাসে গিয়ে বিক্ষোভরত ছাত্রছাত্রীদের পাশে দাঁড়ান দীপিকা পাডুকোন। তাঁর সঙ্গে ছিলেন কানহাইয়া কুমার ও জেএনইউ ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষ। তার আগে জেএনইউ-কাণ্ডে একটি সর্বভারতীয় চ্যানেলে দীপিকা বলেছেন,”আওয়াজ তুলতে আমরা ভয় পাই না, এটা ভেবে গর্বিত হচ্ছি। রাস্তায় হোক বা অন্য কোথাও ওরা প্রতিবাদ করছে। এটাই গুরুত্বপূর্ণ। সমাজ ও জীবনে বদল চাইলে একটা মতামত তুলে ধরাটা জরুরি। আমার মনে হয়, আমরা দেশ ও আগামীর কথা ভাবছি।” বলে রাখি, শুক্রবার মুক্তি পাচ্ছে দীপিকার নতুন ছবি ‘ছপক’। অ্যাসিড আক্রান্ত তরুণীকে নিয়ে ছবির গল্প। তারপর থেকে গেরুয়া শিবিরের নিশানায় রণবীর-জায়া।

আরও পড়ুন…নাগরিকত্ব আইন নিয়ে কি বললেন অমর্ত্য সেন?
রবিবারের ঘটনায় আহত হন জেএনইউ ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষ-সহ ৩৬ জন। রয়েছেন শিক্ষক-অশিক্ষক কর্মীরাও। মঙ্গলবার ঐশীকে নিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেছিলেন, ”একজনের মাথায় রক্ত পড়েছে নাকি লাল রং দেওয়া হয়েছে, সেটা এখনও পরীক্ষা করা হয়নি।যাদবপুরে মন্ত্রীকে পেটানো হল, আমাদের নেত্রীকে মারা হল। এখানে মনে হচ্ছে বিরাট কিছু হয়েছে। ঐশী ঘোষকে মাথায় ব্যান্ডেজ বেঁধে দেখানো হচ্ছে। একাধিক ভিডিয়োয় দেখা গিয়েছে দুষ্কৃতীদের নেতৃত্ব দিয়েছেন ঐশী।” জেএনইউ-কাণ্ডে দীপিকা পাডুকোন পড়ুয়াদের পাশে দাঁড়ানোর পর থেকেই নেট দুনিয়ার এক অংশ বয়কট ছপক এর মন্তব্য করছে।

Loading...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here