ভিডিও দেখে প্রকাশ্যে ধমক তৃণমূল নেত্রীর

0
49

নিজস্ব সংবাদদাতা(নীলাদ্রি চৌধুরী)১/১১/১৯

এলাকায় গন্ডগোলের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন পুর্ব বর্ধমানের গুসকরা ফাঁড়ির আইসি স্নেহময় চক্রবর্তী। তাকে ঘিরে স্থানীয় কিছু লোকজন ক্ষোভ বিক্ষোভ দেখান। এমনই অবস্থায় ওই পুলিশ আধিকারিকের মুখোমুখি হলেন স্থানীয় এক তৃণমুল নেত্রী। পুলিশ আধিকারিককে কার্যত তুলোধোনা করে ছাড়লেন গুসকরার বাসিন্দা মল্লিকা চোংদার নামে ওই তৃণমূল নেত্রী। ঘটনাটি অবশ্য দিনকয়েক আগের।কিন্তু মল্লিকাদেবী ও স্নেহময়বাবাবুর কথোপকথনের ওই দৃশ্য কেউ ক্যামেরাবন্দি করেন। ৩ মিনিট ৩২ সেকেন্ডের ভিডিও ফুটেজ পরে এলাকায় ভাইরাল হয়ে যায়। তার জেরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, বেশকিছু লোকজন ঘিরে রয়েছেন স্নেহময় চক্রবর্তী-সহ কয়েকজন পুলিশকর্মীকে। আর স্নেহময়বাবুকে মল্লিকাদেবী একের পর এক তোপ দেগে যাচ্ছেন। অত্যন্ত উত্তেজিত অবস্থায় মল্লিকাদেবীর মুখ থেকে বেড়িয়ে আসছে কিছু গালাগালিও।স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে গুসকরা পুরসভার পিছনে বামুনপুকুর পাড়ে রয়েছে বেশকিছু পরিবারের বসবাস।সেখানে জুয়ার আসর বসে।স্থানীয় বাসিন্দারা তার প্রতিবাদ জানান সেসময় পুলিশের টহলদারি ভ্যানটি ওদিকে যাচ্ছিল। পুলিশকর্মীরা দেখে দাঁড়িয়ে পড়েন। তাঁরা স্নেহময়বাবুকে জানালে, কিছুক্ষণের মধ্যেই স্নেহময়বাবুও চলে আসেন। তারপরেই কয়েকজন অনুগামীর সঙ্গে হাজির হন গুসকরার তৃণমূল নেত্রী মল্লিকা চোংদার।স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সম্প্রতি একটি চুরির ঘটনায় গলসি এলাকার এক অভিযুক্তকে নিয়ে গুসকরায় একটি গুদাম ঘরে চোরাই সামগ্রী উদ্ধারের জন্য পুলিশ অভিযান চালিয়েছিল। পরে গুসকরার একজনকেও পুলিশ গ্রেপ্তার করে। তা নিয়ে স্থানীয়দের একাংশের ক্ষোভ ছিল স্নেহময়বাবুর বিরুদ্ধে। ওদিন ভিডিওতে দেখা যায় স্থানীয়দের কয়েকজনও স্নেহময় চক্রবর্তীর উদ্দেশ্যে ক্ষোভপ্রকাশ করছেন। মল্লিকাদেবী বলেন,স্থানীয়রা স্নেহময়বাবুর প্রতি প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ। আমার বক্তব্য যে দোষ করছে সে শাস্তি পাক আপত্তি নেই। কিন্তু স্নেহময়বাবু নিরীহদেরও মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে দিচ্ছে। এলাকায় দাদাগিরি চালিয়ে যাচ্ছে। আমার সম্পর্কেও অনেক বাজেবাজে মন্তব্য করেছিল স্নেহময়। এসব কারণেই ওনাকে কিছু স্পষ্ট কথা শুনিয়েছি।”

Loading...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here