মাদ্রাসায় জঙ্গি তৈরি হয় ? কি বললেন AIMA এর সাধারন সম্পাদক রুহুল আমিন সাহেব …

0
202

একান্ত সাক্ষাতকার aima -র সাধারন সম্পাদক রুহুল আমিন সাহেবর । সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের দাবির অধিকার তুলতে aima কিভাবে কাজ করেছে সে বিষয়ে বিস্তারিত জানালেন সংবাদ টিভির প্রতিনিধি অর্পিতা ব্যানার্জিকে ।

অর্পিতা ব্যানার্জি – অল ইন্ডিয়া মাইনরিটি অ্যাসোসিয়েশন বা আইমার সুত্রপাত কিভাবে?

রুহুল আমিন-  ২০১০ সালে সেপ্টেম্বর মাসে দলিত শ্রেণীর বাবলু ঝুল্কি নামে একজন মারা যান। তার মারা যাওয়ার কারনের তদন্তে আইমার প্রথম প্রশাসনের দারস্ত হয়। কারন সেই সময়ের সরকার বা যে সরকার আসতে চলেছে কেউই পাশে দাঁড়ায়নি পিছিয়ে পড়া মানুষদের পাশে। তাই বাবলু ঝুল্কির মৃত্যুর প্রতিবাদকে কেন্দ্রকে পিছিয়ে পড়া মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য তৈরি হয় একটি সংগঠন। যার নাম ALL INDIA MINORITY ASSOCIATION.

অর্পিতা ব্যানার্জি – কিভাবে কাজ করে আইমা?

রুহুল আমিন-  শুধু মাত্র সংখ্যা লঘুদের জন্যই নয়। ভারতবর্ষে সকল সম্প্রদায় বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গে পিছিয়ে পড়া হিন্দু, মুসলিম, কিছুটা বুদ্ধিস্ট সম্প্রদায়ের জন্য কাজ করে আইমা।পিছিয়ে পড়া মানুষদের জন্য কাজ শেষ করে ওঠা সম্ভব হয় না সবসময়। অনেক জায়গা যেমন শিক্ষার পরিকাঠামো, অর্থনৈতিক পরিকাঠামো এইরকম বিশেষ কিছু জায়গায় যাতে পিছিয়ে পড়া মানুষেরা সমান অধিকার পায় তাদের জন্য কাজ করে আইমা। এছারাও যারা পিছিয়ে আছে যে সকল সংখ্যালঘু মানুষেরা তাদের মধ্যে একটা সামাজিক বোধ জাগিয়ে তলার জন্য কাজ করে আইমা।

 

সম্পূর্ণ সাক্ষাতকার দেখতে ক্লিক করুন ভিডিওটিতে…

অর্পিতা ব্যানার্জি – তাৎক্ষনিক তিন তালাক এর বিষয়ে আপনার কি অভিমত?

রুহুল আমিন-  তাৎক্ষনিক তিন তালাক এর বিষয়ে অনেকেই ঠিক করে জানেন না।এমনকি পিছিয়ে পড়া মুসলিম সমাজও বিষয়টা ঠিক করে জানতে পারেন নি। তার জন্য আমরা চার জন অভিজ্ঞ স্কলারকে মানি।সেখানে তাৎক্ষনিক তিন তালাক সবসময় বলাই হয়ছে অবৈধ। চোদ্দশ বছর আগেই ইসলাম ধর্মে বলা হয়ছে তাৎক্ষনিক তিন তালাক অবৈধ। ইসলাম সমজে কোরানে কথাও তন তালাকের কথা সেই অর্থে লেখাই নেই। বিবাহ বন্ধন একটি চুক্তিতে যখন স্বামী স্ত্রী একসঙ্গে থাকতে সমস্যা তৈরি হয় তখন প্রথমে বোঝানো হয় তারপর কোনভাবেই সামঞ্জস্য না হলে তখন তালাক হয়। এই তালাক স্বামী স্ত্রী উভয়ই দিয়ে পারে। অনেকসময় এমন হয় কোনভাবেই এক মুহূর্ত থাকতে পারেন না অনেকে।সেই ক্ষেত্রে তাৎক্ষনিক তিন তালাক হয়। বিজেপি সরকার এখনে এই তাৎক্ষনিক তিন তালাক নিয়ে মুসলিম সমাজকে বুমেরাং করেছেন। এবং মনে করছেন মুসলিম মহিলাদের অধিকার পাইয়ে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু মাত্র কিছু জায়গায় মুসলিম মহিলারা সেলিব্রেট করলেও সারা দেশের মুসলমান মহিলা এটাকে সাপোর্ট করেন নি উল্টে প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছে। এই আইন আমদের ইসলাম সমাজে আগে থেকেই রয়ছে।এর আগে কোন মিডিয়া বা কোনোরকম ভাবে সামনে আসে নি। তাই কথাও একটা এই আইন পাসের মধ্য দিয়ে এটা সকলের আই ওয়াস করা হচ্ছে।

অর্পিতা ব্যানার্জি – আগামী ২০২১ বিধানসভা ভোটে যখন সব দলগুলি তাকিয়ে আছে সংখ্যা লঘুদের ভোটের দিকের তখন আপনারা কাকে চাইছেন?

রুহুল আমিন-  আমার বা আমাদের চাওয়ার উপর কিছু নেই। পশ্চিমবঙ্গে অনেক জায়গায় মানুষ ভোট দেওয়ার সুযোগ পান না। তবে যদি ভোট দিতে পারেন তাহলে বলবো এমন কাউকে ভোট দিন যে বা যারা সেকুলারিজমকে বোঝেন। আর আইমার বাইরে গিয়ে সম্পূর্ণ আলাদাভাবে একটি থার্ড ফ্রন্ট তৈরি হওয়ার চেস্টা চলছে।কারন সংখ্যালঘু প্রচুর মানুষদের সাপোর্ট পাচ্ছি আমারা। আগে বহু রাজনৈতিক দল যে সাপোর্টকে নিজের দলের ক্ষেত্রে কাজে লাগিয়েছেন।তাই যদি সবকিছু ঠিক থাকে তাহলে এই থার্ড ফ্রন্ট রাজনৈতিক ভাবেও এগোবে সকল মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য.

বিস্তারিত জানতে লগ অন করুন www.sangbadtv.com

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here