গুজরাটের ওপর আছড়ে না পড়ে রাতারাতি পথ বদলালো সাইক্লোন বায়ু

0
11

গুজরাটের ওপর আছড়ে না পড়ে রাতারাতি পথ বদলালো সাইক্লোন বায়ু

 নিজস্ব সাংবাদদাতা(সায়ন্তনী বড়াল), ১৩/৬/১৯

আপাতত এ বায়ু সরে গেছে সমুদ্রের দিকে। তবে, পথ পরিবর্তন করলেও আগামী ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার জন্য পশ্চিম উপকূলে হাই অ্যালার্ট জারি রয়েছে। সমুদ্র রয়েছে উত্তাল। ঝোড়ো হাওয়া বইছে উপকূল দিয়ে। এ তথ্য জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।বুধবারই দিউ এবং গুজরাটের উপকূলীয় অঞ্চল থেকে তিন লাখের বেশি মানুষকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। উদ্ধার ও ত্রাণ কাজের জন্য এরই মধ্যে তৈরি থাকতে বলা হয়েছে ৫২ সদস্যের একটি ত্রাণ ও বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনিকে।টুইটে পরিস্থিতির দিকে নজর রাখার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

আমেদাবাদ আবহাওয়া অফিসের আধিকারিক মনোরমা মহান্তি জানিয়েছেন, গুজরাটে আছড়ে পড়ছে না সাইক্লোন বায়ু। আপাতত এর গতিপথ ভেরাভাল, পোরবন্দর এবং দ্বারকার দিকে। এর ফলে, উপকূলীয় অঞ্চলে ভারী বৃষ্টি এবং ঝোড়ো হাওয়া বইবে। বুধবার বিকেলে এ ঝড়ের আছড়ে পড়ার কথা ছিল গুরাটের উপকূলীয় অঞ্চলে।এরই মধ্যেই পশ্চিম রেল যাত্রা বাতিল করেছে ৭০টি ট্রেনের। যাত্রাপথ সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে ২৮টি ট্রেনের।

সতর্কতা জারি থাকা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে উপকূলীয় অঞ্চলের সমস্ত স্কুল। বিপর্যয় এড়াতে ডুবুরিদের সমুদ্রের ধারে অবস্থানের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।বুধবার মধ্য রাত থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে পোরবন্দর, দিউ, ভাবনাগর, কেশোদ আর কান্দলার বিমানবন্দর। আবহাওয়ার অবস্থা বুঝে বন্ধ রাখা হবে সুরাট বিমানবন্দরও।

সাইক্লোন বায়ুর প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে মুম্বাইতেও। এর ফলে, মুম্বাই বিমানবন্দর থেকে ৪০০টি বিমান বাতিল হতে পারে। এরই মধ্যেই ১৯৪টি বিমান বিলম্বে ছেড়েছে। বিমানবন্দরে বিলম্বে এসে পৌঁছোয় ১৯২টি বিমান।উপকূলীয় নিরাপত্তা রক্ষী বাহিনি, সেনাবাহিনি, নৌবাহিনি, বিমান বাহিনি এবং সীমান্তের সেনাবাহিনিকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

গুজরাট উপকূলের দুটো প্রধান বন্দর, কোচ উপসাগরের আদানি ও দিনদয়াল থেকে জাহাজ চলাচল বন্ধ করা হয়েছে বুধবার থেকে।সমুদ্রে ১৫ জুন পর্যন্ত মৎস্যজীবীদের মাছ ধরতে যাওয়া না যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে গুজরাট সরকার। মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রুপানি সোমনাথ. দ্বারকা, সাসান, কুচ থেকে আপাতত নিরাপদ স্থানে চলে যাওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন পর্যটকদের।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আবহাওয়াবিদ, সরকার এবং স্থানীয় সংস্থাগুলোর রিয়েল টাইমের দেয়া তথ্য নির্দেশ মেনে চলার কথা জানিয়েছেন। একই সঙ্গে সাইক্লোন প্রভাবিত অঞ্চলের মানুষদের নিরাপত্তার জন্য প্রার্থনা জানিয়েছেন তিনি।গত মাসে ওড়িষায় সাইক্লোন ফণী আছড়ে পড়ার পরেই এবার উপকূলীয় অঞ্চল তছনছ করতে আসছে বায়ু।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here