ভিজছে উত্তরবঙ্গ, শুখা দক্ষিন!

0
92

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ শ্রাবণেও চাতকের দশা দক্ষিণবঙ্গের। বুধবার ও আগামী ২৪ ঘণ্টা অর্থাৎ বৃহস্পতিবার, দক্ষিণবঙ্গে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা। এমনটাই পূর্বাভাস আলিপুর আবহাওয়া দফতরের। আপাতত যা বৃষ্টি হবে তা অতিরিক্ত আর্দ্রতা থেকে তৈরি হওয়া বজ্রগর্ভ মেঘে। আপাতত দক্ষিণবঙ্গে বহাল থাকবে রোদ। আবহাওয়াবিদরা জানাচ্ছেন, বঙ্গোপসাগরের ওপরে যদি কোন নিম্নচাপের ঘূর্ণাবর্তের আবির্ভাব হয় তবেই মৌসুমী অক্ষরেখা নামতে পারে নিচে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের উপর। তাতেই কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে বেশি বৃ্ষ্টি হবে। তার আগে তেমন কিছু হওয়ার সম্ভাবনা কম। মৌসম ভবনের তথ্যও দক্ষিণে বৃষ্টির স্বল্পতাকে স্পষ্ট করছে। পয়লা জুন থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত দক্ষিণবঙ্গে বর্ষার ঘাটতি ছিল সামান্য। তবে পয়লা জুলাই থেকে ২৭ জুলাই এই পর্বে দক্ষিণবঙ্গের বর্ষার ঘাটতি রয়েছে ১৫ শতাংশ।

তবে ভারী বৃষ্টির হাত থেকে রেহাই মিলবে না উত্তরবঙ্গের। এমনটাই জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। আগামী কয়েক দিন ফের ঝেঁপে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে। মৌসুমী অক্ষরেখা হিমালয়ের পার্বত্য এলাকায় অবস্থান করবে। তার জেরে উত্তরবঙ্গ, সিকিম-সহ উত্তরের পার্বত্য এলাকায় ভারী বৃষ্টি হবে। আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং, কোচবিহার, জললপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, কালিম্পঙে বৃষ্টি চলবে আগামী কয়েকদিন। ইতিমধ্যেই ভাসছে উত্তর। তার উপরে এই ৫ জেলায় ফের বুধবার পর্যন্ত প্রবল বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। বর্ষাকালের ক্ষেত্রে মৌসুমি অক্ষরেখার অবস্থান নির্ধারণ করে বৃষ্টিপাতের পরিমাণের উপর। এমনিতেই উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির পরিমাণ বেশি হচ্ছে এই বছর। তার মধ্যে এ বার অক্ষরেখা হিমালয়ের পাদদেশে থিতু হওয়ার ফলে সেখানে বৃষ্টির পরিমাণ বেশি হচ্ছে। এ পর্যন্ত জলপাইগুড়ি, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ারের বহু এলাকায় বেশ কয়েকদিন অতি ভারী বর্ষণ হলেও বড়সড় বন্যার মুখে পড়েনি উত্তরবঙ্গ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here