দেশের অর্থনীতি মন্দার ছোঁয়া লাগেনি মনমোহনের আমলে

0
209

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ অক্সফোর্ড ও ইউনাইটেড নেশনের যৌথ সমীক্ষা বলছে, ২০০৫ থেকে ২০১৬ সাল, অর্থাৎ ১১ বছরের মধ্যে ২৭ কোটি ভারতবাসী গরিবি মুক্ত হয়েছেন। অর্থাৎ দারিদ্র সীমার বাইরে এসেছেন তাঁরা। আর এই সময়কালের মধ্যে প্রথম ১০ বছর ক্ষমতায় ছিল ইউপিএ সরকার। ফলে এই সমীক্ষাকে হাতিয়ার করে কংগ্রেস যে মোদি সরকারকে কোণঠাসা করবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। প্রতি বছর গরিব মানুষদের বেঁচে থাকার সমস্যাগুলিকে পরিমাপ করা হয় গ্লোবাল মালটিডাইমেনশনাল পভার্টি ইন্ডেক্স বা এমপিআই-এর নিরিখে। সেই মাপকাঠিতে ৭৫টি দেশকে বিচার করা হয়েছে। পূর্ব, মধ্য ও দক্ষিণ এশিয়া, ইউরোপ, লাতিন আমেরিকা, সাব-সাহারান আফ্রিকা ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় একাধিক দেশকে এই গবেষণার আওতায় নিয়ে আসা হয়।

এই গবেষণার মূল লক্ষ্য ছিল, বিশ্বব্যাপী দারিদ্রের হার কতটা কমেছে তা খতিয়ে দেখা। অক্সফোর্ড পভার্টি অ্যান্ড হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভ ও ইউনাইটেড নেশনস ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের যৌথ গবেষণায় বিস্তারিত তথ্য উঠে এসেছে। রাষ্ট্রপুঞ্জের তরফে ‘চার্টিং পাথওয়েজ আউট অফ মালটিডাইমেনশনাল পভার্টিঃ অ্যাচিভিং দ্য এসডিজিস’ শীর্ষক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, দারিদ্র কমিয়ে বিশ্বে রেকর্ড গড়েছে ভারত। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ভারত, আর্মেনিয়া, নিকারাগুয়া ও উত্তর ম্যাসিডনিয়া, এই চারটি দেশে সাড়ে পাঁচ থেকে সাড়ে ১০ বছরের মধ্যে এমপিআই অর্ধেক বা তার বেশি কমেছে। ৫০টি দেশে দারিদ্র সীমায় থাকা মানুষের সংখ্যাও কমেছে। জানা গিয়েছে, ভারতে ২০০৫ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে অর্থাৎ ১১ বছরে প্রায় ২৭ কোটি ৩০ লাখ মানুষ দারিদ্র সীমার বাইরে এসেছে। ২০০৫ সালের আগে ভারতের ৫৫.১ শতাংশ মানুষ এমপিআই ভ্যালুর নিচে বাস করত। ২০১৬ সালে সেই পরিমাণ ২৭.৯ শতাংশ। ২০১৬ সালে সিভিয়ার এমপিআই ভ্যালুর নিচে বসবাসকারী জনসংখ্যার পরিমাণ ৮.৮ শতাংশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here