টার্গেট ২১,  সেবামূলক কাজই ‘হাতিয়ার’ অভিষেকের

0
74

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ টার্গেট বাংলার যুব সমাজ। ‘রাজনৈতিক সংকীর্ণতা’ বাদ দিয়ে লক্ষ্য ‘বাংলার জয়’। আর সেই জয় নিশ্চিত করতে “সেবা মূলক কাজ”কে হাতিয়ার করে ৫০ লক্ষ মানুষের কাছে পৌঁছানোর লক্ষ্যমাত্রা স্থির করল তৃণমূল কংগ্রেস। অরাজনৈতিক এই কাজ কতটা গুরুত্বপূর্ণ, তা বোঝাতে শনিবার বাংলার যুবশক্তি অভিযানের ফেসবুক লাইভে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘যোগ্য লোককে জায়গা দিতে নিজের পদও ছাড়তে রাজি তিনি।’তৃণমূল পার্টি সংগঠন ও তার অন্যান্য শাখা সংগঠনের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত অথবা যুক্ত নন এমন যুবকদের নিয়েই তৈরি হয়েছে বাংলার যুবশক্তি। প্রাথমিক ভাবে এই অভিযানে মোট এক লক্ষ যুবক যুবতী টার্গেট করা হয়েছিল । কিন্তু শনিবার অভিষেক জানান, ‘ইতিমধ্যেই পাঁচ লক্ষ্যের ও বেশি যুবক যুবতী এই অভিযানে নাম নথিভুক্ত করেছেন।’ প্রত্যেক যুবক-যুবতীদের দ্বিতীয় পর্যায়ের লক্ষ্য ঠিক করে দিলেন অভিষেক।

এদিন এই অরাজনৈতিক প্ল্যাটফর্ম নিয়ে বলতে গিয়ে অভিষেক বলেন, ‘বিজেপি, কংগ্রেস, সিপিএম– তৃণমূল যে কোনও পার্টির সঙ্গে যুক্ত থেকেও করা যাবে বাংলার যুবশক্তি৷ বাংলার যুবশক্তি কোনও রাজনৈতিক কর্মসূচি নয়। কোভিড, আমফান পরিস্থিতিতে মানুষের পাশে দাঁড়ানোই লক্ষ্য।’তিনি জানান, পাড়া প্রতিবেশীর দায়িত্ব নিতে হবে যুব সম্প্রদায়কেই। তাই করোনা পরিস্থিতিতে প্রত্যেক তৃণমূল কর্মীদের দশটি করে পরিবারের দায়িত্ব নিতে হবে। তাঁদের বাড়ি-বাড়ি গিয়ে খোঁজ খবর নিতে হবে। প্রয়োজনে বাজার করে দেওয়া, ওষুধ এনে দেওয়া, কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে সচেতন করতে হবে তাঁদের। এক-দুদিন নয়, আগামী কয়েক মাস তাঁদের দায়িত্ব নিতে হবে তৃণমূল কর্মীদের। যুব তৃণমূলের সভাপতির কথায়, “বহু মনীষী বাংলার মাটিতেই জন্মেছেন। তাঁরা যুব সম্প্রদায়কে দেশের দায়িত্ব নিতে বলেছেন। কারণ, তাঁরাই পারেন দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে। সেই কথায় অনুপ্রাণিত হয়েই যুবশক্তিকে এগিয়ে আসতে আহ্বান জানানো হচ্ছে। একজোট হয়ে লড়াই করলেই এই বিপদ কেটে যাবে।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here