হাল ছেড়ো না……

0
84

নিজস্ব প্রতিবেদন (দেবস্মিতা ঘোষ)০১.০৮.২০২০:সমীর সাউ ক্লাস টু এর ছাত্র। এখন তার কাঁধে স্কুলের ব্যাগ নয় বাদামের ঝোলা। পকেটে খুচরো কিছু পয়সা। পায়ে হাওয়াই চটি। মুখে অবশ্য একটি মাক্স আছে। তবে সেটি একজন স্বহৃদয় মানুষের কাছ থেকে পাওয়া। ফ্যালফ্যাল চোখে গুটি গুটি পায়ে শহর ঘুরে বেড়াচ্ছে ছোট্ট ছেলেটি। উদ্দেশ্য একটাই কিছু বাদাম বিক্রি করে বাড়িতে ফিরে যাওয়া। বাবা দিল্লিতে কাজ করে। মা ভিক্ষাবৃত্তি করে। মায়ের সঙ্গে থাকে তারই ছোট ভাই। কিন্তু সমীর ভিক্ষাবৃত্তি করতে চায়না। পরিশ্রম করেই সামান্য পয়সা রোজগারের চেষ্টা তার। স্কুল বন্ধ,ফলে পড়ার ব্যাগকে কাঁধ থেকে নামিয়ে বাদামের ঝোলা কাঁধে তুলেছে ছোট্ট সমীর। কখনও শহরের রাস্তায়। আবার কখনো বা বড় বড় শোরুম এর দরজার পাশে দাঁড়িয়ে বাদাম বিক্রির চেষ্টা। ছোট্ট দুটি পায়ে বেশিক্ষণ না দাঁড়াতে পারার জন্য কখনো কখনো বসে পড়ে সমীর। তবে হাল ছাড়ে না। বাদাম টুকু শেষ করে তবেই বাড়ি ফিরবে। কেউ কেউ আবার তাকে দেখেও না দেখার ভান করে কাটিয়ে চলে যায়। কখনো বা শোরুমের থেকে আপত্তি জানায় তাকে বাইরে দাঁড়িয়ে থেকে বাদাম বিক্রি করার জন্য। তবু তার চেষ্টার শেষ নেই। তবে জানিনা কবে তার কাঁধ থেকে বাদামের ঝোলা টি নামবে আবার পড়ার ব্যাগ উঠবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here