করোনা আবহে দুর্গা পুজো নিয়ে কি ভাবছেন কলকাতার নৃত্যশিল্পীরা?

0
553

নিজস্ব প্রতিনিধি(দেবস্মিতা ঘোষ) ২৩.১০.২০২০

প্রতি বছরই এই পুজোর সময় বিভিন্ন ক্ষেত্রের শিল্পীরা ব্যাস্ত থাকেন তাঁদের কাজ নিয়ে।প্রায় প্রতিটা ক্লাব এ অনুষ্ঠিত হয় নানা রকমের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। শুধু বাংলায় না এমনকি অন্য রাজ্য এবং প্রবাসেও পাড়ি দেন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের জন্যে।তবে এ বছর করোনার প্রকোপে পুরো চিত্রটাই অন্যরকম।

আমরা ২০২০র শারদীয়ার এই ভিন্ন চিত্র ও তার প্রতিক্রিয়া নিয়ে কথা বলে নিয়েছি কলকাতা তথা এই দেশের নাম করা কিছু নৃত্যশিল্পীর সাথে।

মালবিকা সেন-

“প্রতিবছর পুজো বিভিন্ন রকমের কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে কাটে। বিভিন্ন জায়গায় পুজোর উদ্বোধন থাকে।বিচারক হিসেবে পরিদর্শন করতে হয় প্রচুর মণ্ডপ।এছাড়াও সাংস্কৃতিক বহু কাজের মধ্যে থাকি অন্য বছর।নিজের পারফরম্যান্স ছাড়াও এই পুজোর সময় নানা জায়গায় আয়োজিত নৃত্য প্রতিযোগিতার বিচারক হিসেবে উপস্থিত থাকতে হয়।এ বছর প্রায় সমস্ত কাজগুলোই ডিজিটালি হচ্ছে।কিছু কিছু জায়গায় শারদ সম্মান ও হচ্ছে ডিজিটালি।অনেক সংস্থা থেকে নৃত্য প্রতিযোগিতাও হচ্ছে ডিজিটালি।অর্থাৎ বলা ভুল হবে যে কোনও কাজ হচ্ছে না।তবে সাবধানতার কথা ভেবে এ বছর পুজোর জাঁকজমক হোক আমি চাইনি। কারণ মানুষের প্রাণ সবার আগে।তবে শুধু পুজোয় নয়,গত আট ন’ মাস ধরেই মঞ্চকে অসম্ভব মিস করছি।আমি নৃত্য প্রশিক্ষণের থেকে মঞ্চে নিজে নৃত্য পরিবেশন করতে ভালোবাসি। তাই এই দুঃসময় কাটিয়ে তাড়াতাড়ি মঞ্চে ফেরার অপেক্ষায়।”

কোহিনুর সেন বরাট-

শুধু কলকাতা বা ভারত নয় সমগ্র পৃথিবী এই করোনার কবলে আক্রান্ত।আমি প্রায় কুড়ি বছর পর পুজোয় কল্কাতাতে।তবে পুজোতেও এখানে এবার কোনও অনুষ্ঠান নেই।তবে শিল্পীদের কথা কেউ ভাবছে না। শিল্পীরা শুধু বিনোদনের জন্যে নয়।তাদেরও আত্মীয় পরিজন আছে,তাদেরও শরীর খারাপ হয়।কিন্তু এই দুর্দিনে শিল্পীদের কথা রাজ্য বা কেন্দ্র সরকার ভাবছে না।তাদের দিকে বাড়িয়ে দেয়া হচ্ছে না কোনও সাহায্যের হাত।এই দুর্দিনে উৎসবের এই আড়ম্বর মেনে নেয়া যাচ্ছে না। যাদের কাছে অফুরন্ত আছে তাদের উচিৎ এই বছর একটু অন্যের পাশে দাঁড়ানো।নয়তো আমরা যে এত মানুষকে হারাচ্ছি করোনার জন্য, আগামী দিনে হারাতে হবে দুর্ভিক্ষের কারণে।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here