ধর্মস্থল নিয়ে বিক্ষোভ

0
72

নিজস্ব প্রতিবেদন (দেবস্মিতা ঘোষ)৩১.০৭.২০২০:”ঐতিহ্যবাহী আদিবাসী সাঁওতাল গ্রামসভা”র পক্ষ থেকে শুক্রবার রানীগঞ্জের সমষ্টি উন্নয়ন কার্যালয়ে, নুপুর মৌজার, নুপুর সাঁওতাল আদিবাসী গ্রামের, পূজা-অর্চনার ধর্মস্থল “জাহের থান” জমি মাফিয়ারা দখল করতে চাইছে। এই অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ কর্মসূচিতে শামিল হলো আদিবাসী সম্প্রদায়ভুক্ত মানুষজন। ওই আদিবাসী সংগঠনের নেতৃস্থানীয়দের দাবি দীর্ঘ প্রায় ১০দশক এর অধিক সময় ধরে তারা গ্রাম্য পুজোর জন্য এই জাহের থানটি ব্যবহার করে আসছেন। সেই জমিতে কৌশলগতভাবে চক্রান্ত করে জবর দখল করতে চাইছে একশ্রেণীর জমি মাফিয়া, বলেই দাবি করলেন তারা। তাদের দাবি ২0১৫ সালে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যব্যাপী জাহের থানের, জমি রেকর্ড করার জন্য এক বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিলেন। সে সময় তারা জাহের থান রেকর্ড করার জন্য সংশ্লিষ্ট কার্যালয়ে আবেদন পত্র জমা করেন। প্রায়ই এক বিঘার মত জমিতে অবস্থিত এই জাহির থানটি দখল করতে গত ২৪ শে জুলাই একশ্রেণীর মাফিয়া উঠে পড়ে লেগেছিল তারা বিরোধ করে সেসময় কাজ বন্ধ করেন ও পুলিশে খবর দেন। শুক্রবার সেই জমিকে দখল করা যাবে না এই দাবি জানিয়ে প্রতিবাদে সরব হয় তারা, তাদের দাবি ওই জাহের থান কে আরো ভালোভাবে গড়ে দেওয়ার জন্য ব্যবস্থা নিক প্রশাসন। এই দাবি তুলে তারা সমষ্টি উন্নয়ন কার্যালয়ের বাইরে বিক্ষোভ দেখায়। পরে তারা তাদের দাবি পত্র, তারা যুগ্ম সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক অমর্ত্য মুখার্জির হাতে তুলে দেন। অমর্ত্য বাবু তাদের বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে আশ্বস্ত করেন। সেখানেই এদিন এই ডেপুটেশন কর্মসূচির মধ্যেই হাজির হন রানীগঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি বিনোদ নুনিয়া, তিনি এদিন এই কর্মসূচি প্রসঙ্গে জানতে পেরে জানান যে কোন মতেই এই সকল ধার্মিক স্থল গুলিকে কেউ জোর করে ছিনিয়ে নিতে পারবে না, দরকারে যারা এধরনের কাজে লিপ্ত তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পাশাপাশি ওই জাহের থান টিকে আরো ভালো ভাবে গড়ে তোলা যাতে যায়, তার ব্যবস্থাও তিনি করবেন বলেও আশ্বস্ত করেন ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here