পাস্তা খান আর পেয়ে জান সুন্দর ত্বক

0
1724

নিজস্ব প্রতিনিধি ০৫.১০.২০২০:

জানেন কি, প্রতিদিন ব্রেকফাস্টের অভ্যাস আপনার ত্বকের সৌন্দর্যকে অনেকটাই বাড়িয়ে তুলতে পারে? সুন্দর আর তারুণ্যদীপ্ত ত্বক পেতে বাইরে থেকে আপনি যতটা যত্ন করেন, ঠিক ততটাই দরকার ভিতর থেকে পুষ্টি। ডায়েটেশিয়ান, বিউটি এক্সপার্ট এবং ডাক্তার সকলেই কিন্তু সুষম খাদ্য তালিকার উপর জোড় দেন।

সঠিক পুষ্টিগত মান থাকবে যে খাবারে সেরম ভাবে ঠিক সময় মত খেলেই পাবেন ফলাফল।

আর সমস্ত বিশেষজ্ঞদের মতামত সারাদিনের খাবারের মধ্যে জলখাবার ভালো করে করা উচিৎ।

ডাক্তারদের মতে সারাদিনে আমরা যা কাজকর্ম করি এবং আমাদের শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়া ঠিক করে কাজ করার জন্য সঠিক সময়, সঠিক পুষ্টিগুণ সম্পন্ন খাবার ও সঠিক পরিমাণে সেই খাবার খাওয়া বাধ্যতামূলক।

মোটা হয়ে যাওয়ার ভয় অনেকেই জলখাবার  খায় না।কিন্তু এই পদ্ধতি ভুল।

কী খাবার দিয়ে শুরু করতে পারেন আপনার দিন?

ব্রেকফাস্টের প্লেটে কী কী থাকলে সেটা আমাদের ত্বকের জন্যও উপকারি হবে জানেন কি? আমাদের একটা ধারণা আছে যে, হেলদি খাবার কখনো টেস্টি হয় না। একদমই কিন্তু তা নয়। আপনাদের জন্য থাকলো কিছু সাজেশন যেখান থেকে অনায়াসেই আপনি ব্রেকফাস্ট মেন্যু ঠিক করে নিতে পারবেন বা ব্রেকফাস্ট টেবিলে বৈচিত্র্য আনতে পারবেন। 

) ডিম এবং ডিম দিয়ে তৈরি নাস্তা 

ডিম দিয়ে নাস্তা করেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না। জেনে খুশি হবেন যে ডিম ত্বকের কোলাজেন উৎপাদনে বিশেষ সহায়ক, এর ফলে ত্বক কোমল ও টানটান থাকে। প্রোটিনের সবচাইতে ভালো উৎস হচ্ছে ডিম, এটা আমরা সবাই জানি। এছাড়াও ডিমে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এবং মিনারেলস আছে। সকালের নাস্তাতে বিভিন্নভাবে ডিম খেতে পারেন। যেমন বয়েল্ড এগ, সুগার ফ্রী এগ পুডিং, এগ স্যান্ডউইচ, সুইটলেস কাপ কেক, ডিম পোঁচ আরও কত কী! তবে যারা একটু বেশি স্বাস্থ্যবান এবং হাই প্রেসার ভুগছেন, তাদের ডিমের কুসুম এড়িয়ে যাওয়া উচিত।

২) সবজি খিচুড়ি

একটু ভারী ও পরিপূর্ণ নাস্তা হিসাবে সিজনাল সবজি মিলিয়ে চাল-ডালে তৈরি করতে পারেন সবজি খিচুড়ি। সুন্দর ত্বক পেতে ব্রেকফাস্ট প্লেটে দৈনিক সবজি রাখাটা মাস্ট। পালং শাক, মিষ্টি কুমড়া, গাজর, কাঁচা পেঁপে, মিষ্টি আলু এগুলো অ্যান্টি-অক্সিডেন্টের খুব ভালো সোর্স। স্কিন সেল ডেভেলপমেন্ট এবং ভেতর থেকে হেলদি রেডিয়েন্ট পেতে এই সবজিগুলো মেন্যুতে রাখতে হবে। সাধারণত সকালের নাস্তা গ্রহণের পর প্রায় সবাইকেই কোনো না কোনো কাজে যেতে হয় আর অতিরিক্ত ক্যালরি সারাদিনের কাজের মাধ্যমে পুড়িয়ে ফেলাটাও সহজ হয়। তাই একটু ভারী জলখাবার করতেই পারেন। আর ভাত প্রিয় বাঙ্গালীর গরম গরম খিচুড়ি পেলে তো কোনো কথাই নেয়!  

৩) ফ্রেশ ফ্রুট সালাদ 

সব ধরণের ফলই পুষ্টি গুণে ভরপুর, শুধু আপনাকে বেছে নিতে হবে ব্রেকফাস্ট টেবিলে কোনটা আপনার জন্য ভালো হবে। টক জাতীয় ফল যেমন- লেবু, মালটা খালি পেটে খেলে অ্যাসিডিটি হতে পারে। গ্রিন আপেল, কালো আঙ্গুর, পাকা পেঁপে, কিউয়ি, বেরিজাতীয় ফল, কলা, বেদানা এগুলো খুব ভালো অপশন হতে পারে আপনার জন্য। যেমন পাকা পেঁপে আপনার হজমশক্তি ভালো রাখবে, ত্বকও হয়ে উঠবে উজ্জ্বল। আপেল, বেদানা, স্ট্রবেরি, ব্ল্যাকবেরিতে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকে যা ত্বককে ফ্রি র‍্যাডিকেলসের হাত থেকে বাঁচায়, স্কিনকে ইয়াংগার লুকিং রাখতে হেল্প করে। একটু মধু, টকদই আর ফল মিলিয়ে সালাদের বোল রেডি করে নিন। হেলদি ব্রেকফাস্টের জন্য বেশি কষ্টও কিন্তু করতে হলনা!  যারা রুটি, সবজি সকালের মেন্যুতে প্রিফার করেন না বা বানানোর টাইম হয় না, তাদের জন্য এটা বেশ সুইটেবল। 

৪) কর্ণফ্লেক্স বা ওটমিল 

কাজুবাদাম, কিসমিস, পেস্তা, আখরোট, ফ্যাট ফ্রি দুধ মধু য়ে একবাটি কর্ণফ্লেস্ক কিংবা ওটস- যুগোপযোগী নাস্তা! এক বাটিতে কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, ফলিক এসিড আর নিউট্রিয়েন্টস কিন্তু একসাথে পেয়ে যাচ্ছেন। আমেরিকান একাডেমী অফ ডার্মাটোলোজীর এক গবেষণায় উঠে এসেছে ওটস খেলে স্কিনের পে এইছ ব্যাল্যান্স ঠিক থাকে, ত্বক ভেতর থেকে ময়েশচারাইজড আর স্মুদ করতেও হেল্প করে। কর্ণফ্লেস্কের তুলনায় ওটসে ফাইবার বেশী থাকে। আপনার ডাইজেস্টিভ সিস্টেম যদি ঠিক না থাকে তাহলএ ব্রণ,  অন্যান্য স্কিন প্রবলেম দেখা দেয়। তাই ফাইবারযুক্ত খাবার আপনার সকালের মিল-এ রাখুন। 

৫) পাস্তা

পাস্তা আপনার হেলদি ডায়েটের জন্য গুড চয়েস হতে পারে কেননা হোল গ্রেইন পাস্তাতে ক্যালরি মোটামুটি এমাউন্টে থাকে, সাথে নিউট্রিয়েন্ট ও ফাইবার পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকে। এতে ডিম, সবজি, প্রন অথবা চিকেন মিলিয়ে ব্যালান্সড মিল তৈরি করতে পারেন। ব্রকলি, টোম্যাটো এগুলো স্কিনের জন্য খুবই ভালো। পাস্তাতে এই ধরণের ভেজিটেবল মিলিয়ে নিন। পেটও ভরবে, সাথে স্কিনের জন্য উপকারীও হবে। 

) আটার রুটি

সকালের নাস্তায় রুটি খাওয়ার প্রচলন বাঙ্গালীদের মধ্যে অনেক আগের থেকেই। গবেষণায় দেখা গেছে হোল গ্রেইন আটা খেলে স্কিনের কমপ্লেকশন ভালো হয় এবং ফাইবার কনটেন্টের জন্য পরিপাকক্রিয়া স্বাভাবিক থাকে। রুটির সাথে সবজি, ডিম দিয়ে  জলখাবার করতে পারেন। 

) গ্রিন টি অথবা ব্ল্যাক কফি

রেগুলার গ্রিন টি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে পারেন অথবা চিনি ছাড়া ব্ল্যাক কফিও নাস্তার পর চলতেই পারে। এটা শরীরকে চাঙ্গা করে তুলবে আর স্কিন বেনিফিটতো আছেই। গ্রিন টি স্কিনের জন্য খুবই উপকারী কেননা এতে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আর অ্যান্টি এজিং প্রোপারটিজ থাকে যা আপনার স্কিনকে হেলদি, রেডিয়েন্ট, ইয়াংগার লুকিং রাখতে হেল্প করবে। রিসেন্ট এক গবেষণাতে দেখা গেছে ব্ল্যাক কফির ক্যাফেইন ডিএনএ রিপেয়ারিং-এ ভুমিকা রাখে, তাই এটা স্কিন ক্যান্সার প্রতিরোধে বেশ ইফেক্টিভ। পরিমিত মাত্রার ক্যাফেইন স্কিন কমপ্লেকশন ব্রাইট করতেও হেল্প করে। তাই নাস্তার টেবিলে গ্রিন টি অথবা ব্ল্যাক কফি রাখুন। আর চা কফি পছন্দ না করলে সিজোনাল ফলের জুস দিয়ে জলখাবার শেষ করতে পারেন। 

ব্যস, জেনে নিলেন আপনার হেলদি ডায়েটের কিছু অপশন। মনে রাখবেন, সবার বডি মেটাবলিজম এক না, তাই দুধজাতীয় খাবার বা কোন ফলে যদি গ্যাস্ট্রিক হবার হিস্ট্রি থাকে তাহলে এভয়েড করবেন আর নাস্তা করার আগে অবশ্যই পানি দিয়ে শুরু করবেন। শরীরের পূর্ণ সুস্থতার জন্য দরকার পর্যাপ্ত পুষ্টি আর দিনের শুরুটাই হোক হেলদি ফুড দিয়ে। সুস্থ থাকুন, সুস্থ রাখুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here