দত্ত বাড়ির লেডিকেনি

0
427

নিজস্ব প্রতিনিধি (দেবস্মিতা ঘোষ)০৭.১০.২০২০:

 বনেদি বাড়ির পুজো বলতেই অনেক পুজোর নাম মাথায় আসে। এর মধ্যে অন্যতম দত্ত বাড়ির পুজো।এই পুজো শুরু হয় ১৮৮২ সালে শ্যামল দত্তের হাত ধরে এই বছরে পা দেবে ১৩৯ বছরে।সমস্ত নিয়মকানুন মেনে এখানে পুজো হয়ে থাকে ।কোন পশু বলি হয়না ও দত্ত বাড়ির পুজোয় এরা অন্নভোগ মাকে দেন না তবে ভোগের মধ্যে অন্যতম বিভিন্ন রকমের মিষ্টি নারকেল নাড়ু ,গজা ,দরবেশ লেডিকেনি অনেক কিছু।লেডিকেনি কলকাতায় প্রথম তৈরি করেন ভীম চন্দ্র নাগ।

 উপকরণ:-

 বাড়িতে তৈরি ছানা খোয়াক্ষীর

এরারুট

পাউডার

ময়দা

ঘি

 তেল

 চিনি

জল

প্রণালী:-

 প্রথমেই বলে রাখছি এই প্রণালী তৈরি করার জন্য দু’রকমের শিরা লাগবে ১ পাতলা চিনির শিরা ও গাঢ়ো চিনির শিরা।হালকা চিনির শিরা তৈরি করার জন্য হালকা অথবা মাঝারি আঁচে কড়াই বসিয়ে তাতে  ১ কাপ চিনি এবং দেড় কাপ জল দেবেন ।চিনি সম্পূর্ণভাবে গুলে যাওয়ার জন্য ৮ থেকে ১০ মিনিট সময় দিয়ে তা নামিয়ে নেবেন। এরপর গাঢ়ো চিনির শিরা তৈরি করার জন্য কড়াইয়ে দেড় কাপ চিনি এবং দেড় কাপ জল দিয়ে ততক্ষণ অবধি আঁচে রাখবেন যতক্ষণ না এই শিরাটা একটু গাঢ় ও থকথকে হচ্ছে।

 এরপর লেডিকেনি তৈরি করার জন্য একটা চাটানো জায়গায় ছানা নেবেন। ছানাটাকে ভালো করে মাখবেন চার থেকে পাঁচ মিনিট ।এরপর এর মধ্যে খোয়াক্ষীর ,এরারুট, ময়দা ভালো করে দিয়ে আরও ৭ থেকে ৮ মিনিট মতন ছানার সাথে মাখবেন। এরপর অল্প করে ছানার বল কেটে নিয়ে তাকে লম্বা সেপ দিয়ে পাশে রাখুন। লম্বা ছানার পিসগুলো করা হলো তা এবার আলাদা রাখুন। কড়াইয়ে ঘি দিয়ে ভাল করে গরম হতে দিন হালকা আঁচে। এরপরে এই লম্বা ছানা টুকরোগুলোকে ওই ঘি তে ভাজুন কুড়ি থেকে ২৫ মিনিট। ভাজুন যতক্ষণ না কালচে সোনালী রং আসছে। এরপর লেডিকেনি তৈরি হওয়ার পরে এটাকে পাশে রাখুন ঠান্ডা হওয়া অবধি। এবার হালকা চিনির শিরাটাকে  ভালো করে গরম করে নিন এবং লেডিকেনি টুকরোগুলোকে দু’ঘণ্টা হালকা চিনির রসে চুবিয়ে রাখুন। হালকা চিনির শিরায় দু’ঘণ্টা লেডিকেনি গুলো ডুবিয়ে রাখার পরে ,যে ঘন  সিরাপটা তৈরি করা হয়েছিল তা দিয়ে দিন ওই হালকা চিনির শিরা থেকে লেডিকেনি সড়িয়ে তাতে এবং আরো দু’ঘণ্টা তাতে চুবিয়ে রাখুন ।এরপর সুস্বাদু লেডিকেনি পরিবেশন করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here