দুর্গাষ্টমীতে কেন করা হয় কুমারী পুজো ? কীই বা এর ইতিহাস ?

0
222

পল্লবী সান্যাল : দুর্গা পুজোর বিভিন্ন রীতি-নিয়মের মধ্যে কুমারী পুজো অন্যতম। অষ্টমী পুজো শেষে কুমারী পুজো করা হয়ে থাকে। ঋতুমতী না হওয়া মেয়েরা ওই দিন কুমারী হিসেবে পূজিতা হয়। বেলুড় মঠ থেকে শুরু করে বনেদী বাড়ির পুজোগুলিতে কুমারী পুজোর প্রচলন রয়েছে।

পৌরাণিক কাহিনী অনুযায়ী, কোলাসুর স্বর্গ ও মর্ত্য দখল করে নিলে দেবগণ মা কালীর কাছে সাহায্য প্রার্থনা করে। তাদের মিনতিতেই মা কালী শিশুকন্যা রূপে জন্ম গ্রহণ করেন ও কোলাসুরকে বধ করেন। সেই থেকেই কুমারী পুজো শুরু। মনে করা হয় কুমারী পুজো সব বাধা বিপত্তি কাটিয়ে দিতে পারে।

কুমারী পুজোর বৈশিষ্ট্য হল তার ধর্ম বা জাত দেখা হয় না। ১ বছর থেকে ১৬ বছর বয়সী মেয়েরা কুমারী হিসেবে পূজিত হয়ে থাকে। কুমারী পুজো করা হয় বারবণিতাদের মেয়েকেও। বয়সের ভিত্তিতে কুমারীদের বিভিন্ন নামে ডাকা হয়। যেমন – যে মেয়ের বয়স ১ বছর তাকে বলা হয় সন্ধ্যা, ৭ বছরের মেয়েকে বলা হয় মালিনী, ১২ বছর হলে ভৈরবী ও ১৬ বছরের মেয়েকে ডাকা হয় অম্বিকা নামে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here