মাধ্যমিকের মেরিট লিস্টে কলকাতাকে পিছনে ফেলে জেলার জয়-জয়কার

0
102
madhyamik student celebrating result Express Photo Shashi Ghosh

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ কোভিড পরিস্থিতিতে পরীক্ষার ১৩৯ দিনের মাথায় প্রকাশিত মাধ্যমিকের ফল। বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে মেধাতালিকা প্রকাশ করলেন মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি কল্যানময় গঙ্গোপাধ্যায়। চলতি বছরে সাফল্যের নিরিখে প্রথম পূর্ব মেদিনীপুর। মোট ৯৬.৫৯ শতাংশ পড়ুয়া পাশ করেছে। তারপরেই রয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুর। কলকাতায় পাশের হার ৯১.০৭ শতাংশ, দক্ষিণ ২৪ পরগনা ৯০.৬০ শতাংশ এবং হাওড়া ৮৭.৬৩ শতাংশ। মাধ্যমিকে প্রথম অরিত্র পাল৷ পূর্ব বর্ধমানের মেমারি বিদ্যাসাগর মেমোরিয়াল স্কুলের ছাত্র অরিত্র পেয়ছে ৯৯.১৪ শতাংশ নম্বর। মাধ্যমিকে দ্বিতীয় হয়েছে দু’জন৷ বাঁকুড়ার সায়ন্তন গড়াই ও পূর্ব বর্ধমানের অভীক দাস৷ এদের প্রাপ্ত নম্বর ৬৯৩৷ তৃতীয় স্থান অধিকার করেছে তিনজন। বাঁকুড়ার সৌম্য পাঠক, পূর্ব মেদিনীপুরের দেবস্মিতা মহাপাত্র ও অরিত্র মাইতি অধিকার৷ তিনজনেরই প্রাপ্ত নম্বর ৬৯০।

মাধ্যমিকে চতুর্থ স্থানে বীরভূমের অগ্নিভ সাহা৷ মেয়দের মধ্যে সম্ভাব্য প্রথম স্থান বাঁকুড়া বিক্রমপুর রাধাদামোদর হাইস্কুলের ছাত্রী দেবস্মিতা মহাপাত্র। পঞ্চম হয়েছে ৪ জন, বংশীহারি হাইস্কুলের ছাত্র অঙ্কিত সরকার, স্বস্তিক সরকার, রশ্মিতা সিনহা মহাপাত্র, বিভা বসু মণ্ডল। ষষ্ঠ হয়েছে ১২ জন, শিলিগুড়ি গার্লস হাইস্কুলের রিঙ্কিনি ঘটক, রায়গঞ্জ করোনেশন হাইস্কুলের অর্চিস্মান সাহা ও রাজিবুল ইসলাম, বাঁকুড়া খ্রিস্টান কলেজিয়েট স্কুলের সৃজন সাহা, দক্ষিণচক হাইস্কুলের অরিজিৎ গুহ রায়, সপ্তর্ষি জানা, অশোকনগর বাণীপীঠ গার্লস হাইস্কুলের অস্মি চৌধুরি। হাওড়ার সৌহার্দ পাত্র। তাদের প্রাপ্ত নম্বর: ৬৮৭।  সপ্তম হয়েছে ১৭ জন। করণ দত্ত, ঋতম বর্মন, সোহম তামাং, অরণী চট্টোপাধ্যায়, অরিত্র মাঝি, সাগ্নিক মিত্র কেন্দুয়া, বর্ধমান সিএমএইচ হাইস্কুলের শৌভিক সরকার, দিব্যকান্তি ঘোড়ই, সম্প্রীতি কুণ্ডু, পিয়াস প্রামাণিক, সাহিত্য মণ্ডল, শহিদ মহম্মদ শামিম। অষ্টম হয়েছেন ১১ জন। তাদের প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৫। তালিকায় রয়েছে নাসমিন আজাদ, মহম্মদ তাহিনুজ্জামান, সুপ্রতীক পণ্ডিত, অঙ্কিতা ঘোষ, শুভঙ্কর মাইতি-সহ আরও অনেকে। নবম স্থানাধিকারী অনেকেই। তাদের প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৪।  মাধ্যমিকে দশম স্থানাধিকারীরা ২৩ জন পেয়েছেন ৬৮৩ নম্বর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here