শীতকালে উজ্জ্বল ত্বক পেতে আজই দেখে নিন এই টিপস………

0
568

নিজস্ব প্রতিবেদন ০৬.১১.২০২০:

শীতকালে শুষ্ক শীতল হাওয়া ও বাতাসে বেড়ে যাওয়া ধুলাবালুর কারণে ত্বক হয়ে যায় খসখসে । এর ফলে দেখা দেয় নানা সমস্যা, যেমন ত্বক ফেটে যাওয়া, ত্বকে চুলকানি ইত্যাদি।কিন্তু সকলেই চায় যে তার ত্বকে শুষ্কতা ও রুক্ষতা যাতে না ধরা পরে,বরং ত্বক যেন লাগে উজ্জ্বল ও প্রাণবন্ত।। সুতরাং আমাদের এমনকিছু ব্যবহার করতে হয় যা দেওয়ার ফলে ত্বকে কোন শুষ্কতা না থাকে। কিন্তু আমরা যে সব কস্মেটিক ব্যবহার করি সেটার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তো থাকেই। তার টেনশনও আমাদের করতে হয়। তাহলে এমন কিছু আমাদের প্রয়োজন যা মুখে দিলে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার টেনশন থাকবে না, আবার শীতে ত্বক থাকবে মসৃন, উজ্জ্বল ও সুন্দর। শীতকালে ত্বকের সুস্বাস্থ্য রক্ষায় দরকার বাড়তি যত্ন ও সতর্কতার জন্যে কিছু টিপস।

শীতে ত্বকের যত্নে হলুদের প্যাক

হলুদ তো আমাদের সকলের পরিচিত। আর হলুদের উপকারিতা সম্পর্কে আমরা জানি। কিন্তু হলুদ শুধু যে রান্নাবান্নার কাজে হয় তা নয়। এই হলুদ ত্বকের যত্নে অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি উপাদান। ত্বকের যেকোনো সমস্যা দূর করে- অসম গায়ের রং স্বাভাবিক করে, ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখতে হলুদের কোন তুলনা হয় না। এখন দেখে নেবো হলুদের প্যাক শীতকালীন ত্বকের যত্নে কতটা উপকারী।

হলুদেরি।প্যাক তৈরিতে তিন টেবিল-চামচ লেবুর রসের সাথে এক টেবিল-চামচ হলুদগুঁড়া মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করতে হবে। এই মিশ্রণ ত্বকে মেখে ২০ মিনিট ধরে অপেক্ষা করতে হবে। শুকিয়ে গেলে পরিষ্কার পানি দিয়ে আলতো ভাবে ধুয়ে ফেলতে হবে।

শীতে ত্বকের যত্নে টমেটো লেবুর মাস্ক

শীতে মৌসুমে খুবই সহজলভ্য সবজি টমেটো। আর ত্বকের পোড়াদাগ দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা ফুটিয়ে তুলতে টমেটো খুবই উপকারী।  টমেটো ও লেবুর মাস্ক বানাতে একটি টমেটো নিয়ে ভালোভাবে থেঁতলে নিতে হবে এবার এর সাথে দুই টেবিল-চামচ লেবুর রস ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। মিশ্রণটি গলায় এবং মুখে মেখে ২০ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। কিছুটা শুকিয়ে গেলে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

লেবু প্রাকৃতিক ব্লিচ হিসেবে কাজ করে। যা ত্বকের রং উজ্জ্বল করতে কার্যকর ভূমিকা পালন করে। এই মাস্ক ব্যবহারে রোদে পোড়া ভাব দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা ফুটিয়ে তুলবে।

শীতে ত্বকের যত্নে কলা দইয়ের প্যাক

কলার অনেক গুন। আর রূপচর্চায় তো কলার গুন বলে শেষ করা যাবে না। কলা ও দইয়ের প্যাক তৈরিতে প্রথমে একটি পাকাকলা চটকে তার সাথে দুই টেবিল-চামচ টক দই এবং এক টেবিল-চামচ মধু মিশিয়ে নিতে হবে। লক্ষ্য রাখতে হবে যেন প্রতিটি উপাদান খুব ভালোভাবে মিশে যায়।

প্যাক তৈরি হয়ে গেলে মুখ এবং গলায় পুরু করে মিশ্রণটি মেখে অপেক্ষা করতে হবে। কিছুটা শুকিয়ে গেলে ৩০ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। কোমল ত্বকের জন্য সপ্তাহে দুবার এই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। আশা করি এই প্যাকে আপনি ভাল ফলাফল পাবেন।

শীতে ত্বকের যত্নে কাঠবাদামের প্যাক

বাদামের মধ্যে অনেক পুষ্টিগুণ থাকে। বাদাম ত্বকের ক্ষেত্রে খুব উপকারি। কাঠবাদামের মাস্ক তৈরি করতে হলে চার, পাঁচটি কাঠবাদাম সারা রাত দুধে ভিজিয়ে রাখতে হবে। সকালে কাঠ বাদামের খোসা ছাড়িয়ে দুধ এবং বাদামের পেস্ট তৈরি করতে হবে। রাতে ঘুমানোর আগে ওই পেস্ট মুখে লাগিয়ে সকালে ঘুম থেকে উঠে ভালোভাবে মুখ পরিষ্কার করে ফেলতে হবে।

বাদামের মাস্ক আপনার ভালো নাইট ক্রিম হিসেবে কাজ করবে, যার ফলে ত্বক ভেতর থেকে পরিষ্কার হয়ে বাইরের উজ্জ্বলতা ভাব ফুটিয়ে তুলবে। তাছাড়া শীতে ত্বক শুষ্ক হয়ে যাওয়ার সমস্যা থেকেও রেহাই পাওয়া যাবে।

শীতে ত্বকের যত্নে ওটমিল মাস্ক

ত্বকে জমে থাকা ময়লা এবং মৃত কোষের ভাজ তুলতে নিয়ম করে এই মাস্ক ব্যবহার করা জরুরি। স্ক্রাবারের সাহায্যে ত্বক পরিষ্কার করতে এই মাস্ক অনেক সাহায্য করে থাকে। এতে ত্বক পরিষ্কার হয় এবং ত্বকে বলিরেখা পড়ার সম্ভাবনাও কম হয়।

ওটমিল মাস্ক তৈরি করতে প্রথমে চার টেবিল-চামচ ওটমিলের সাথে চারটি কাঠবাদাম গুঁড়া করে মিশিয়ে নিতে হবে। তারপর সামাণ্য দুধ এবং এক টেবিল-চামচ মধু দিয়ে ওটমিল ও কাঠবাদামের মিশ্রণ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করতে হবে। মুখের ত্বকে এই মিশ্রণ লাগিয়ে পাঁচ মিনিট অপেক্ষা করে আলতো হাতে মালিশ করতে হবে। এই মাস্ক ব্যবহারে ত্বকে জমে থাকা ময়লা এবং মৃতকোষ পরিষ্কার হবে। এরপর কুসুম গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।

সুন্দর ত্বক আমাদের সকলেরই চাওয়া। সুতরাং সুন্দর ত্বক উজ্জ্বল রাখতে নিয়মিত ত্বকের যত্ন নেওয়া জরুরি। আর তাই প্রতিদিন বা সপ্তাহে নিয়ম করে ত্বকের যত্নে কিছুটা সময় রাখা উচিত। আর এই শীতের মৌসুমে মুখ ধোয়ার পর অবশ্যই যে কোনো প্যাক ব্যবহার বা ভালো মানের ময়েশ্চারাইজার পর্যাপ্ত পরিমাণে ত্বকে লাগাতে হবে। না হলে ত্বক শুষ্ক ও মলিন হয়ে যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here