আপনার কি শারীরিক আকর্ষণ কমে যাচ্ছে?

0
1254

নিজস্ব প্রতিনিধি ১২.০৯.২০২০ঃসেক্স এবং ডিপ্রেশনের মধ্যেকার সম্পর্কটি খুবই জটিল। কারণ ডিপ্রেশন (Depression) অনেকসময়ই সেক্সের ইচ্ছে কমিয়ে দেয়। কোনও রকম শারীরিক আকর্ষণও থাকে না। কিন্তু কিছুদিন আগেই গবেষণায় নতুন একটি তথ্য পাওয়া গিয়েছে। ডিপ্রেশনের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করে বীর্য। এমনকী কোনও মহিলা ডিপ্রেশনে ভুগলে অনেক সময়ই তাঁকে সেক্সের পরামর্শ দেওয়া হয়।

কারণ মন-মেজাজ ঠিক করতে এবং হরমোনের সঠিক ক্রিয়া ফিরিয়ে আনতে বীর্য (Semen) সাহায্য করে। বেশ কিছু কলেজ পড়ুয়াদের উপর এই গবেষণাটি চালিয়েছিলেন গবেষকরা। যাঁরা এই মুহূর্তে হতাশ এবং যাঁদের মধ্যে যৌনতা সম্পর্কে ধারণা একটু ভিন্ন। এখনও নানা ছুঁতমার্গ রয়েছে। এবং শরীরী মিথোস্ক্রিয়ার ব্যাপারে যাঁরা উদাসীন। তাঁরা দেখেন, যেসব কাপল সেক্সের (Sex) সময় কনডোম ব্যবহার করেন তাঁরা তুলনায় বেশি হতাশায় ভোগেন, যাঁরা ব্যবহার করেন না তাঁদের থেকে। কারঁ সরাসপি বীর্যপাতের সংস্পর্শে আসলে হতাশা অনেকাংশে কমে যায় বলে গাবি বিজ্ঞানীদের। কিন্তু কোনওভাবেই কনডোম ব্যবহারে তাঁরা নিরুৎসাহ করছেন না।

বারে বারে কনডোম ব্যবহারের কথা বলেছেন। সঙ্গে এমনও বলেছেন সম্পর্কে অবসাদ কাটাতে যৌনমিলন আবশ্যক। কারণ তাঁরা সমীক্ষায় দেখেছেন একটি বয়সের পর যে সব ছেলে বা মেয়ে সেক্স সম্পর্কে কোনও রকম অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারেনি তাদের মধ্যে অল্পেই হতাশা আসে। কিন্তু আবার এটাও বলেছেন, অনেক মেয়ে আছেন যাঁরা অল্প বয়স থেকেই ফিঙ্গারিং-এ অভ্যস্ত হয়ে পড়েন। যা কিন্তু অবসাদের লক্ষণ।

একইভাবে হস্তমৈথুনকেও তাঁরা অবসাদ এবং মানসিক অসুস্থতা বলেই গণ্য করেছেন। অনেকেই সম্পর্ক থাকলেও শারীরিক সম্পর্কে যেতে ভয় পান। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, একটা বয়সের পর অবশ্যই শারীরিক মিলন দরকার হয়। তাতে উভয়েরই ভালো। শরীর এবং মন যেমন সুস্থ থাকে তেমনই যে কোনও কাজ অনেক বেশি মনযোগ দিয়ে করা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here