জানেন কি গান্ধীজির শৈশবে প্রিয় খেলা কি ছিলো?

0
610

নিজস্ব প্রতিনিধি (দেবস্মিতা ঘোষ)২৯.০৯.২০২০:

মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধী ১৮৬৯ সালের ২ রা অক্টোবর  পোরবন্দরের হিন্দু মোধ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।তার পিতা করমচাঁদ গান্ধী ছিলেন পোরবন্দরের দেওয়ান (প্রধান মন্ত্রী)। মা পুতলিবা করমচাঁদের চতুর্থ স্ত্রী ছিলেন। পুতলিবা প্রণামী বৈষ্ণব গোষ্ঠীর ছিলেন।করমচাঁদের প্রথম দুই স্ত্রীর প্রত্যেকেই একটি করে কন্যাসন্তান জন্ম দিয়েছিলেন। অজানা কারণে তাদের মৃত্যু হয়। গান্ধীর ব্যাপারে তার বোন মন্তব্য করেন, তিনি খেলাধুলা কিংবাা ঘুরাঘুরির ব্যাপারে পারদের মত নিশ্চল ছিলেন । তার শৈশব কালে প্রিয় খেলা ছিল কুকুরের কান মোচড়ানো ধার্মিক মায়ের সাথে এবং গুজরাটের জৈন প্রভাবিত পরিবেশে থেকে গান্ধী ছোটবেলা থেকেই জীবের প্রতি অহিংসা, নিরামিষ ভোজন, আত্মশুদ্ধির জন্য উপবাসে থাকা, বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী ও সম্প্রদায়ের পারস্পরিক সহিষ্ণুতা ইত্যাদি বিষয় শিখতে শুরু করেন।মহাত্মা গান্ধীকে নির্ভীক সাহসী মনে হলেও প্রকৃত পক্ষে তিনি অত্যন্ত লাজুক এবং ভিতু প্রকৃতির ছিলেন। তিনি এতটাই লাজুক ছিলেন যে বিদ্যালয়ের সহপাঠীদের কারো সাথেই কথাতো বলতেন না এবং প্রায়ই স্কুল থেকে পালিয়ে বেড়াতেন খুদে গান্ধী।

গান্ধীর উদারতার কথা আমরা সবাই জানি, কিন্তু এই ঘটনাটি কজন জানেন দেখুন তো। একবার ট্রেনে ওঠার সময় মহাত্মা গান্ধীর একটি পায়ের জুতো পড়ে যায় তখনই সঙ্গে সঙ্গে আরেকটি জুতো তিনি ছুঁড়ে মারেন পড়ে যাওয়া জুতোর কাছাকাছি, যাতে খুব সহজেই কেউ জুতো জোড়া পেয়ে যান।তিনি জন্মেছিলেন হিন্দু বৈশ্য গোত্রে, যা ছিল ব্যবসায়ী গোত্র।মহাত্মা গান্ধী ছোটবেলায় পোরবন্দর ও রাজকোটের ছাত্রজীবনে মাঝারি মানের ছাত্র ছিলেন। কোন রকমে গুজরাটের ভবনগরের সামালদাস কলেজ থেকে ম্যাট্রিকুলেশন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। তিনি কলেজেও সুখী ছিলেন না, কারণ তার পরিবারের ইচ্ছা ছিল তাকে আইনজীবী করা। ১৮ বছর বয়সে ১৮৮৮ সালের ৪ঠা সেপ্টেম্বর ব্যারিস্টারি পড়ার জন্য ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডনে যান। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here