বাংলার চাণক্য কী ফিকে হচ্ছে গেরুয়া শিবিরে!

0
169

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ দিল্লিতে থাকলেও বিজেপির নির্বাচন প্রস্তুতির বৈঠক এড়ালেন মুকুল রায়। যা নিয়ে রীতিমতো জল্পনা শুরু হয়েছে। কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক ছিল রাজ্য বিজেপি নেতাদের। ২০১২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়েই রাজ্য নেতাদের সঙ্গে কথা বলছেন কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। এমন গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে দিল্লিতে থেকেও যোগ দিলেন না মুকুল রায়।বাংলায় বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে দিল্লিতে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সঙ্গে ৩ দিনের বৈঠক চলছে রাজ্যে বিজেপি নেতাদের। তারই মধ্যে বৃহস্পতিবার আসরে উপস্থিত ছিলেন না মুকুল রায়। সূত্রের খবর, শুক্রবার তিনি কলকাতা ফিরে আসছেন। এদিকে, স্বাভাবিকভাবেই মুকুলের অনুপস্থিতি চোখ এড়ায়নি কারোরই। ফলে শুরু হয়েছে তীব্র জল্পনা। তবে বিষয়টিকে তেমন গুরুত্ব দিতে নারাজ বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর কথায়, “গতকাল বৈঠকে ছিলেন মুকুল রায়। করোনার জন্য উনি কয়েকদিন একটু দূরত্ব বজায় রাখছেন। কালই বলেছেন, আজ আসতে পারবেন না। সম্ভবত তিনি কলকাতা চলে যাচ্ছেন।” তবে দিলীপ ঘোষ বিষয়টিকে উড়িয়ে দিলেও বিষয়টা কি শুধু করোনা কেন্দ্রিক না এর পিছনে অন্য কোনও কারণ রয়েছে তা নিয়ে যথারীতি আলোচনা শুরু হয়েছে।

জানা গিয়েছে, বৈঠকে রাজ্য নেতৃত্বের কাজকর্ম নিয়ে উষ্মাপ্রকাশ করেন কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। বৈঠকে উত্তরবঙ্গের বিষয়ে কথা হয়। এহেন অবস্থায় বুধবার কৈলাস বিজয়বর্গীয়দের সামনে একটি রিপোর্ট পেশ করেন শিবপ্রকাশ। সেখানে বলা হয়, এই মুহূর্তে পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন হলে ১৯০টির বেশি আসনে জয়লাভ করবে বিজেপি। ওই দাবি সমর্থন করেন দিলীপ ঘোষও। কিন্তু মুকুল রায় এই রিপোর্টের খুব একটা যৌক্তিকতা দেখেননি। তাই কিছুটা মতানৈক্যের দরুণ বৈঠকে যাননি তিনি। উপরন্তু কলকাতা ফিরে আসছেন তিনি। অন্যদিকে, এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়। যদিও শোভন ছোটপাধ্যায়ের বৈঠকে যোগ দেওয়ার খবর আবার ছিল না দিলীপ ঘোষের কাছে। বিজেপি রাজ্য সভাপতির কথায়, “শোভনের এই মিটিংয়ে থাকার কথা নয়। কে ডেকেছে জানি না! আমার সঙ্গে কোনও কথা হয়নি।” সব মিলিয়ে, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগেই বিজেপির অন্দরে ফাটল ফের একবার স্পষ্ট হয়েছে বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here