শিক্ষানীতিতে নূন্যতম সরকারি হস্তক্ষেপ চান প্রধানমন্ত্রী !

0
2206

নিজস্ব প্রতিবেদন (পল্লবী সান্যাল) ৭.০৯.২০২০ : জাতীয় শিক্ষানীতিতে নূন্যতম সরকারি হস্তক্ষেপের পক্ষে মত পোষণ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক শিক্ষা মন্ত্রক হওয়ার পরই জাতীয় শিক্ষানীতির ঘোষণা করেছিল কেন্দ্র। যেখানে পরীক্ষা সহ শিক্ষা ব্যবস্থায় বেশ কিছু রদবদল ঘটানো হয়েছে। যা নিয়ে আপত্তি তুলেছে বিরোধী দলগুলি। এমতাবস্থায় জাতীয় শিক্ষানীতির পক্ষে গভর্নর্স কনফারেন্সে সওয়াল করলেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়াও ভার্চুয়াল বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী, বিভিন্ন রাজ্যের রাজ্যপাল, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও অন্যান্য সরকারি আধিকারিকরা। প্রধানমন্ত্রীর দাবি, সরকার বা রাজনৈতিক দলগুলির জন্য নয়, বরং দেশ ও দেশবাসীর মঙ্গলের জন্য পরিবর্তন আনা হয়েছে শিক্ষানীতিতে। জাতীয় শিক্ষানীতিতে তাই সরকারের নূন্যতম হস্তক্ষেপের পক্ষেই মত পোষণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর মতে, দেশের যেমন বিদেশনীতি, প্রতিরক্ষা নীতি ঠিক সেরকমভাবেই শিক্ষাক্ষেত্রে রয়েছে জাতীয় শিক্ষানীতি। এই নীতি সরকারর জন্য নয়, দেশর নাগরিকদের জন্য। সরকারের বদল ঘটলেও এই নীতির সঙ্গে যেন আপোষ না করা হয়। জাতীয় শিক্ষানীতির উদ্দেশ্য জানা, পড়া নয়। সাবজেক্টটিকে বুঝে সেটা আত্মস্থ করবে পড়ুয়ারা। সেই নিয়ে প্রশ্ন করবে তারা। তবেই বিষয়টি নিয়ে গভীরে পৌঁছতে পারবে। ভারতের অর্থনীতিকে শিক্ষা ব্যবস্থার অন্তর্ভুক্ত করতে চাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। বলেছেল, মানুষ যেন চিন্তা করা না থামিয়ে দেয় তার জন্য আন্তর্জাতিক স্তরের শিক্ষা দেওয়ার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া ঘরের ছেলে-মেয়েরাও যাতে সমান শিক্ষা পায়, তার চেষ্টা করছে সরকার। তবে যাতে এই চেষ্টা বাস্তবায়িত হয় তার জন্য আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। সবাইকে দায়িত্ব নিতে হবে। যত বেশি শিক্ষক, অভিভাবক ও ছাত্র-ছাত্রীরা এই শিক্ষানীতির সঙ্গে যুক্ত হবেন, তত এই নীতির কার্যকারিতা বাড়বে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here